বুধবার, ২৯ Jun ২০২২, ০৩:১২ পূর্বাহ্ন

pic
নোটিশ :
পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে!! জেলা উপজেলায় প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে বিস্তারিত জানতে : ০১৭১২-৬৪৫৭০৫
জাদুকাঁটা নদীর পুর্ব তীরে ধ্বসে যাচ্ছে ‘হিলিপের’ ৩৩ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মিত কার্লভাট

জাদুকাঁটা নদীর পুর্ব তীরে ধ্বসে যাচ্ছে ‘হিলিপের’ ৩৩ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মিত কার্লভাট

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি::
সুনামগঞ্জের তাহিরপুরের জাদুকাঁটা নদীর পুর্ব তীরে মোদেরগাঁও-বিন্নাকুলি সড়কে‘হিলিপ’এলজিইডি প্রকল্পের প্রায় ৩৩ লাখ ব্যয়ে নির্মিত কার্লভাটটি ক্রমশ ধ্বসে যাচ্ছে।’বিগত বছর পাহাড়ি ঢলে কালভার্টটির সংযোগ সড়কের দু’পাশের মাটি নদী গর্ভে চলে যাওয়ায় পুন:সংস্কার না করায় এ অবস্থার সৃষ্টি হয়ে বর্তমানে ওই কালভার্টের উপর দিয়ে যাবাহন নিয়ে সাধারন লোকজন চলাচল করতে পারছেন না।এর ফলে উপজেলার মোদেরগাঁও-বিন্নাকুলির এ সড়ক ব্যবহারকারী তাহিরপুর ও পার্শ্ববর্তী বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার হাজারো লোকজন প্রতিনিয়ত ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন।’জানা গেছে,২০১৭ সালে বিগত মৌসুমে পাহাড়ি ঢল ও বন্যায় গ্রামীন সড়কের এ কার্লভাটটির সংযোগ সড়কের দু’পাশের মাটি নদীতে সরে যাওয়ায় পর হিলিপ কিংবা এলজিইডি এ সড়কে পুন”সংস্বার কাজ না করায় চলতি মৌসুমে ফের পাহাড়ি ঢল কিংবা বন্যা হলে পুরো কার্লভাটটি নদীতে ধ্বসে পড়বে বলে স্থানীয় আশংকা প্রকাশ করেছেন।’
সরজমিনে গিয়ে জানা গেছে,২০১৪-১৫ অর্থ বছরে হিলিপি এলজিইডি প্রায় ৩২ লাখ ৭০ হাজার ৬৬০ টাকা নির্মাণ ব্যায়ে তাহিরপুরের মোদেরগাঁও-বিন্নাকুলি গ্রামীণ সড়কে কার্লভাটটি নির্মাণ করে।’২০১৬ সালের মার্চে এর নির্মাণ কাজ শেষ হয়। পরবর্তীতে ২০১৭ সালে জাদুকাটা নদী দিয়ে আসা বন্যা ওপাহাড়ি ঢলের তীব্র তোড়ে ভাঙ্গনের কবলে পড়ে কার্লভাটটির সংযোগ সড়কের দু’পাশের মাটি নদীতে সরে যায়।’মাটি সরে যাওয়ায় সড়কের দক্ষিণ দিকে থাকা কার্লভাটের অংশটি ক্রমশ হেলে গিয়ে ধীরে ধীরে ধ্বসেই যাচ্ছে।’
এদিকে এ সড়ক ব্যবহারকারী ভোক্তভোগীরা জানান,উপজেলার মোদেরগাঁও-বিন্নাকুলি গ্রামীণ সড়কটি মুলত দু’উপজেলা তাহিরপুর-ব্শ্বিম্ভরপুর এলাকার লোকজন যাতায়াতে ব্যবহার করে থাকেন।’বিন্নাকুলি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যাায়,মাদ্রাসা,বাজার,রাজারগাঁও অদ্বৈত প্রভুর আঁখড়াবাড়ি, গড়কাটি ইসকন মন্দির,লাউড়েরগড় উচ্চ বিদ্যালয়,বাজার ও শাহ আরেফিন(রহ.)মোকাম সহ স্কুল মাদ্রাসায় যাতায়াতকারী শিক্ষার্থী এবং সাধারন লোকজন এ কার্লভাটের সংযোগ সড়কের মাটি সরে যাওয়ায় ও ধ্বসে যাওয়ার কারনে চরম ঝুঁকি নিয়ে বাইসাইকেল,মোটরসাইকেল ও অটোরিক্সায় যাতায়াত করছেন।
উপজেলার মোদেরগাঁও গ্রামের ব্যবসায়ী রায়হান উদ্দিন বললেন,স্থানীয় সংসদ সদস্য মোয়াজ্জেম হোসেন রতন এমপির বিশেষ বরাদ্দ থেকে প্রাপ্ত অর্থে ও গ্রামবাসীর সহযোগীতায় কার্লভাটটি রক্ষায় মাটি,টিন,বাঁশ ও বস্তা ফেলে তা রক্ষায় চেষ্টা করা হয়েছে কিন্তু প্রটেকশান ওয়াল ও ব্লক বসিয়েই কেবল এ কার্লভাটটি রক্ষা করা সম্ভব অন্যথায় আগামী বর্ষা মৌসুমে এ কার্লভাটটি জাদুকাঁচটা নদীতে ধ্বসে পড়ে বিলীন হয়ে যাবে।
উপজেলার বিন্নাকুলি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মুর্শেদ আলম বললেন,কার্লভাটটির মাটি সরে ধ্বসে পড়ায় ও সংযোগ সড়কে মাটি না থাকায় বিদ্যালয়গামী আশেপাশের ১০ গ্রামের শতশত শিক্ষার্থী বাইসাইকেল ও অটোরিক্সায় চরে যাতায়াতে চরম ঝুঁকির পাশাপাশী ভোগান্তির শিকার হচ্ছে।
উপজেলার রাজারগাঁও শ্রী শ্রী অদ্বৈত জন্মধাম পরিচালনা কমিটির সভাপতি করুণা সিন্দু চৌধুরী বাবুল জানান,প্রতিদিন এ সড়ক ব্যবহার করে হাজারো ভক্ত আঁড়াবাড়ি আসতে গিয়ে ঝুঁকি ও বৈাগান্তির শিকার হচ্ছেন। তিান আরো বলেন, বুধবার থেকে পণতীর্থে আসা কয়েক লাখ লোক যাতায়াত করবেন কিন্তু দ্রুত কার্লভাটটি সংস্কার না করা হলে এ সড়ক দিয়ে সিএনটি, মোটরসাইকেল ও কিক্সায় চরে লোকজন ও ভক্তরা আসতে পারবেন না ফলে দেড় থেকে দু-কিলোমটির সড়ক পায়ে হেঁটেই যাতায়াত করতে হবে।
সুনামগঞ্জ এলজিইডির নির্বাহি প্রকৌশশলী মো.ছিদ্দিকুর রহমানের নিকট শনিবার বিস্তারিত অবহিত করে মোদেরগাঁও-বিন্নাকুলি গ্রামীণ সড়কের ওপর কার্লভাটটি পুন:সংস্কাররের বিষয়ে জানতে চাইলে শরিবার তিনি বললেন,এ বিষয়ে দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে তাহিরপুর উপজেলা প্রকৌশলীকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© All rights reserved © 2017 DakshinSunamganj24.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com