শুক্রবার, ১২ অগাস্ট ২০২২, ১২:০৯ পূর্বাহ্ন

pic
নোটিশ :
পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে!! জেলা উপজেলায় প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে বিস্তারিত জানতে : ০১৭১২-৬৪৫৭০৫
মাহমুদউল্লাহকে এভাবে দলে ফিরিয়ে এনে কী বার্তা দিলো বিসিবি?

মাহমুদউল্লাহকে এভাবে দলে ফিরিয়ে এনে কী বার্তা দিলো বিসিবি?

স্পোর্টস ডেস্কঃ জিম্বাবুয়ে সফরের দল ঘোষণার সময়ই বিস্ময় উপহার দিয়েছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। টি-টোয়েন্টি সিরিজের জন্য সিনিয়রদের কাউকে তো দলে রাখেইনি, সঙ্গে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে সরিয়ে নেতৃত্বের দায়িত্ব দেয়া হলো নুরুল হাসান সোহানকে।

মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ কী তবে টি-টোয়েন্টি থেকে বাদ? বিসিবি জানিয়েছিল, ‘বাদ নয়, তাকে বিশ্রাম দেয়া হয়েছে।’ শুধু নেতৃত্ব থেকে বিশ্রাম নয়, পারফরম্যান্স বিবেচনা করে টি-টোয়েন্টি থেকেই তাকে বিশ্রাম দিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড।

ক্রিকেট বোদ্ধারা তখন মনে করছিলেন, সামনে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। জিম্বাবুয়েকে সামনে রেখে টি-টোয়েন্টি দলটির পুনর্গঠন করার জন্যই হয়তো তরুণ দলটিকে পাঠানো হয়েছে হারারেতে। একই সঙ্গে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে যে টি-টোয়েন্টি থেকে বাদ দেয়ার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে, সেটাও মোটামুটি পরিষ্কার।

মূলত মাহমুদউল্লাহকে বিশ্রাম দেয়ার কথা বলা হলেও তাকে নিয়ে বিসিবির চিন্তা কী? সেটাই এখন অস্পষ্ট হয়ে উঠেছে। তাকে বিশ্রাম দেয়ার অর্থ, তিনিই এখনও মূল অধিনায়ক। দলে যখন ফিরে আসবেন, তখন তাকেই দায়িত্বে বহাল রাখা হবে। যেহেতু বিসিবি তাকে আনুষ্ঠানিকভাবে নেতৃত্ব থেকে বাদ দেয়নি।

কিন্তু প্রশ্নটা দেখা দিয়েছে, জিম্বাবুয়ে সফরে টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক নুরুল হাসান সোহানের ইনজুরির কারণে মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতকে নেতৃত্বের দায়িত্ব দেয়ার পাশাপাশি নাটকীয়ভাবে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে দলে অন্তর্ভুক্ত করার পরই।

যাকে অধিনায়ক থেকে সরিয়ে, ‘বিশ্রামের’ অজুহাতে টি-টোয়েন্টি সিরিজের বাইরে রাখা হয়েছিল, শেষে আবার তাকেই দলে ডাকা হলো সোহানের পরিবর্তে। তো মূল অধিনায়ক দলে ফিরে আসার পর, ভিন্ন অধিনায়ক কেন? এটা নিয়েই এখন গুঞ্জন চারদিকে।

তবে কি মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক পদ থেকে সরানো এবং তাকে বিশ্রাম দেয়া দুটিই ইচ্ছাকৃত ছিল? নির্বাচক ও টিম ম্যানেজমেন্ট মানুক আর নাই মানুক, শেষ ম্যাচে তার অন্তর্ভূক্তি দেখে কিন্তু সেটাই মনে হচ্ছে। মোসাদ্দেক হোসেনের নেতৃত্বে মাহমুদউল্লাহকে দলে ফিরিয়ে এনে আসলে কী বার্তা দিতে চাচ্ছে বিসিবি?

সোহান আহত হয়ে সিরিজ থেকে ছিটকে পড়ায় আবার রিয়াদকে ফিরিয়ে আনা হলো। তার মানে তাকে বাদ দেয়া বা বিশ্রাম দেয়া যেটাই বলা হোক না কেন- সেটা মোটেই যুক্তিযুক্ত ছিল না।

আর যদি তাই না হবে, তাহলে একজনকে বিশ্রাম দেয়ার কথা বলে ২ ম্যাচ পরই তাকে আবার দলে ফেরানো কেন? এটা কিন্তু এক ধরনের প্রহসনও। আসলে কোনো যুক্তিতে রিয়াদকে অধিনায়ক থেকে সরিয়ে দল থেকে বাদ দেয়া হয়নি। অযৌক্তিকভাবেই অধিনায়কত্ব কেড়ে নেয়ার পাশাপাশি তাকে দলের বাইরে ঠেলে দেয়া হয়েছিল।

কেউ কেউ তো এমনও বলছেন, এভাবে টি-টোয়েন্টি দলে তাকে ফিরিয়ে এনে প্রকারান্তরে অপমানই করা হলো। দেশের অন্যতম সিনিয়র এই ক্রিকেটারকে নিয়ে টানা-হেঁচড়া কতটা শোভন? প্রশ্ন অনেকের। একসময় এমনিতেই দলের বাইরে চলে যেতে হবে সিনিয়র ক্রিকেটারদের। কিন্তু তাদেরকে কী একটু সসম্মানে বিদায় নেয়ার সুযোগটাও দেয়া হবে না?

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© All rights reserved © 2017 DakshinSunamganj24.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com