রবিবার, ০২ অক্টোবর ২০২২, ০১:০৬ অপরাহ্ন

pic
নোটিশ :
পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে!! জেলা উপজেলায় প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে বিস্তারিত জানতে : ০১৭১২-৬৪৫৭০৫
আমি ব্যবসায়ী ছিলাম এই তথ্য কোথায় পেলেন, প্রশ্ন অর্থমন্ত্রীর

আমি ব্যবসায়ী ছিলাম এই তথ্য কোথায় পেলেন, প্রশ্ন অর্থমন্ত্রীর

দক্ষিণ সুনামগঞ্জ২৪ ডেস্কঃ   অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল কোনো ব্যবসায়ী নন বলে সাংবাদিকদের কাছে দাবি করেছেন। সাংবাদিকদের উদ্দেশে তিনি বলেছেন, আমি একজন চার্টার্ড অ্যাকাউন্টেড ছিলাম। পাশাপাশি একটি অডিট ফার্মের মালিক, সেখানে কাজ করাকে কোন জাতের ব্যবসা বলবেন?

বুধবার অনলাইনে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক শেষে সংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি পাল্টা প্রশ্ন ছুড়েন।

সোমবার ভারতের পেঁয়াজ রফতানি বন্ধের ঘোষণায় দেশের বাজারে অস্থিরতা শুরু হয়। ঘণ্টায় ঘণ্টায় দাম বাড়ানো হয় পেঁয়াজের। মঙ্গলবার সেঞ্চুরি হাকানো হয় এই পণ্যটির দাম। এক শ্রেণির অসাধু ব্যবসায়ী সুযোগ পেলেই নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের কৃত্রিম সংকট তৈরি করে দাম বাড়িয়ে দেন।

এনিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্ন ছিল- আপনি একজন ব্যবসায়ী হিসেবে ব্যবসায়ীদের অসৎ উদ্দেশ্যকে কীভাবে দেখবেন? জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, প্রথমতো আমি ব্যবসায়ী ছিলাম- সেটা আপনি কী করে জানলেন? দ্বিতীয়ত এই মুহূর্ত থেকে গত ১০ বছরে আমার কোনো ব্যবসা আপনাদের নজরে পড়েছে? এই তথ্য কোথায় পেলেন, আমি ব্যবসায়ী ছিলাম। এখনও কি আমি ব্যবসা করতে পারি? আমি এখন মন্ত্রী, মন্ত্রী হলে ব্যবসা করতে পারে না। এটা ইলিগ্যাল (বেআইনি)। আর আমি ব্যবসা করিও না। ভালোভাবে আপনারা সবাই জানেন, আমি সব কিছু বিক্রি করে বহু আগেই পরিষ্কার।

অসাধু ব্যবসায়ীদের জন্য কী ব্যবস্থা নেবেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমার একটু অংশ ছিল। যদি কোনো কারণে রাজস্ব বাড়িয়ে দেই, সে কারণে যদি দাম বাড়ে, সেটার জন্য অর্থ মন্ত্রণালয় দায়ী। আর বাকি অংশ বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের কাজ। আমার মনে হয় বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এ বিষয়ে দেখাশোনা করছে। অতীতেও সমস্যা হয়েছিল, পরে তা সমাধান হয়েছে। আর ব্যবসায়ীদের উদ্দেশে আমার কিছু বলা লাগবে না। এখন যে আলোচনা হয়েছে তাই পরিষ্কার মেসেজ।

পেঁয়াজের বাজারে অস্থিরতায় জনগণ দুর্ভোগে পড়ছে। ইতোমধ্যে পেঁয়াজের ওপর আমদানি শুল্ক ৫ শতাংশ কমানোর জন্য এনবিআরকে চিঠি দেয়া হয়েছে। এ বিষয়ে কী পদক্ষেপ নেবেন, সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, পেঁয়াজ আমদানিতে ৫ শতাংশ আমদানি শুল্ক কমানোর বিষয়টি বিবেচনা করা হবে। যদি রাজস্ব খাতে কোনো কিছু করার থাকে, অবশ্যই ছাড় দেয়া হবে। অতীতেও বিবেচনা করা হয়েছে, এখনও বিবেচনা করা হবে। জনগণের দুর্দশা বাড়ুক আমরা এটা চাই না। প্রধানমন্ত্রী থেকে শুরু করে আমরা কেউ এ প্রত্যাশা করি না। আমাদের হাতে যেটা আছে, যদি রাজস্ব খাতে কোনো কিছু করার থাকে, অবশ্যই ছাড় দেয়া হবে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© All rights reserved © 2017 DakshinSunamganj24.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com