বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০২:২৫ পূর্বাহ্ন

pic
নোটিশ :
পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে!! জেলা উপজেলায় প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে বিস্তারিত জানতে : ০১৭১২-৬৪৫৭০৫
ছয়হাড়া – ভমভমি বাজারের মধ্যবর্তী ব্রীজটি এখন মরণ ফাঁঁদ

ছয়হাড়া – ভমভমি বাজারের মধ্যবর্তী ব্রীজটি এখন মরণ ফাঁঁদ

স্টাফ রিপোর্টার:: 

ডাবর পয়েন্ট থেকে জগন্নাথপুর পর্যন্ত রাস্তাটি জনবহুল ও অত্যান্ত গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা। প্রতিদিনই এই রাস্তাদিয়ে হাজার হাজার মানুষের চলাচল। গুরুত্বপূর্ণ এই রাস্তার ছয়হাড়া ভমভমি বাজারের মধ্যবর্তী ব্রিজটি এখন মরণ ফাদে পরিনত হয়েছে। ব্রীজের এপ্রোচের অনেক জায়গা ধসে পড়ায় কয়েকদিন পরপরই যানচলাচল বন্ধ হয়ে যায়। জোড়াতালি দিয়ে ঠিক করলেও এর স্থায়িত্ব থাকেনা বেশিদিন। আজ মঙ্গলবার সকাল ৫ টা থেকে দুপুর ১২ টা পর্যন্ত বন্ধ ছিল যানচলাচল৷ কয়েকদিন পরপরই এমন অবস্থা হওয়ায় দুর্ভোগের শেষ নেই যাত্রীদের। এপ্রোচ ধসে পড়ায় যাত্রী নামিয়ে গাড়ি পারাপার করার ফলে মালামাল নিয়েও ঝামেলায় পড়তে হয় মানুষের। বারবার মাটি ধসে গিয়ে মরণ ফাদে পরিনত হয়েছে ব্রীজটি। যার ফলে যে কোন সময় এখানে ঘটতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা।

সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, এপ্রোচ অনেকটাই ধসে পড়েছে। জোড়াতালি দিয়ে যানচলাচল কিছুটা স্বাভাবিক করা হলেও অনেকটা ঝুকি নিয়েই চলছে যানবাহন। গাড়ী চালকসহ যাত্রীরা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, শুধু আজই নয় কয়েকদিন পরপরই এখানে যানচলাচল বন্ধ হয়ে যায়। যানচলাচল বন্ধ হলে কষ্টের শেষ থাকে না তাদের। তাদের দাবী দ্রুত যেন এর স্থায়ী সমাধান করা করা হয়।

এক যাত্রী গৌছ মিয়া বলেন, কয়দিন পরপরই এখানে সমস্যা হয়। জোড়াতালি দিয়ে যানচলাচল স্বাভাবিক করলেও কিছুদিন পরপরই আবারও এই সমস্যা দেখা দেয় । এর স্থায়ী সমাধান সময়ের দাবী।

গাড়ী চালক ইমরান হোসেন বলেন, এটা নতুন কিছু নয়। কয়দিন পরপরই এমন সমস্যা হয়। আজ সকালেও যানচলাচল অনেকটাই বন্ধ ছিল৷ এতে যাত্রীদের মারাত্মক ভোগান্তি হয়েছে। এপ্রোচের মাটি ধসে পড়ায় জীবনের ঝুকি নিয়েই গাড়ি চালাতে হচ্ছে।

স্থানীয় বাসিন্দারা বলেন, কয়েকদিন যাবৎ এমন সমস্যা হচ্ছে এখানে। মানুষের ভোগান্তি চরম আকার ধারণ করেছে। যেকোন সময় এখানে বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। তাই সংশ্লিষ্ট দপ্তরের কাছে আকুল আবেদন দ্রুত যেন এর স্থায়ী সমাধান করে দেয়া হয়।

এ ব্যাপারে, সুনামগঞ্জ সড়ক ও জনপদ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী জহিরুল ইসলামের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্ট করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি। পরে উপ-সহকারী প্রকৌশলী মোস্তাফিজুর রহমানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, এই ব্রীজের এপ্রোচের নিচের মাটি খুবই নরম। বারবার মেরামত করলেও নিচের দিকে ধসে যায়। এতদিন পানি থাকায় কাজ করা যায়নি এখন পানি কমলে পুনরায় মেরামত করা হবে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© All rights reserved © 2017 DakshinSunamganj24.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com