মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৭:৩২ অপরাহ্ন

pic
নোটিশ :
পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে!! জেলা উপজেলায় প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে বিস্তারিত জানতে : ০১৭১২-৬৪৫৭০৫
দোয়ারাবাজারে উজানে পানি কমলেও ভাটিতে অপরিবর্তীত

দোয়ারাবাজারে উজানে পানি কমলেও ভাটিতে অপরিবর্তীত

দক্ষিণ সুনামগঞ্জ২৪ ডেস্কঃ   সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজারে সুরমাসহ সকল নদী-নালা, হাওর, খাল-বিলের পানি ক্রমশ কমলেও নিম্নাঞ্চলের বানভাসিদের দূর্ভোগের শেষ নেই।

উপজেলার সুরমা, বগুলা, লক্ষীপুর, বাংলাবাজার ও নরসিংপুর ইউনিয়ন থেকে পানি ক্রমশ হ্রাস পাচ্ছে। কিন্তু উপজেলার দোহালিয়া, পান্ডারগাঁও, মান্নারগাঁও ও দোয়ারা সদর ইউনিয়নের অধিকাংশ বাড়িঘরসহ আশপাশে কোমর সমান পানি থাকায় বন্যা পরিস্থিতি অপরিবর্তীত রয়েছে। তাই পরিবার পরিজন ও গবাদি পশু নিয়ে চরম বিপর্যয়ে পড়েছেন বানভাসিরা।

এদিকে, খাদ্য সংকটে হালের বলদসহ গবাদি পশুর আহাজারিতে বাতাস ক্রমশ ভারি হয়ে উঠছে। ফসলি মাঠ ও রাস্তায় এখনও পানি থাকায় ক্ষুদ্র ব্যবসায়িসহ খেটে খাওয়া দিনমজুররা পড়েছেন চরম বিপাকে। দফায় দফায় কয়েক কোটি টাকার মাছ জলে ভেসে যাওয়ায় শতাধিক খামারিরা ঋণের চাপে দুশ্চিন্তায় চোখে অন্ধকার দেখছেন। আর্থিক সহায়তা প্রদানসহ বিনাসুদে ব্যাংকঋণ প্রদানের জোর দাবি জানান তারা।

অপরদিকে বন্যা পরবর্তী কৃষি পুনর্বাসনে বিনামূল্যে কৃষি উপকরণ বিতরণ ও গৃহ নির্মাণসহ দুর্গত এলাকায় চাহিদামাফিক ত্রাণ তৎপরতা বৃদ্ধির জোর দাবি জানান ভূক্তভোগিরা।
উপজেলা সদরের সাথে বিভিন্ন ইউনিয়নের সংযোগ সড়কগুলোর অবস্থা এমনিতেই ছিল নাজুক, তার উপর উপর্যুপরি বন্যা ও পাহাড়ি ঢলের তোড়ে চলার অনুপযোগি হয়ে পড়েছে গ্রামিণ রাস্তাগুলো।

এ দিকে উপর্যুপরি তিনদফা বন্যায় খামারিদের কয়েক কোটি টাকার মাছ ভেসে যাওয়া ছাড়াও দু’দফা রোপা আমনের বীজতলা ও সবজি খেত বিনষ্ট হওয়াতে চরম বিপাকে পড়েছেন উপজেলাবাসী। জমি থেকে পানি না নামায় শেষ দফা বীজ বুনতে দেরি হওয়াতে আমনসহ অগ্রহায়ণী মওসুমি ফসল উৎপাদন ব্যহত হওয়ার আশংকায় ভূগছেন দফায় দফায় নিপীড়িত কৃষককুল। তাই বন্যা পরবর্তী কৃষি পুনর্বাসনে বকেয়া কৃষিঋণ মওকুফসহ বিনাসুদে নতুন ঋণ প্রদান, বিনামূল্যে কৃষি উপকরণ, ধানের বীজ, চারা, সার ও মাছের পোনা বিতরণের জন্য কৃষিবান্ধব সরকারের প্রতি জোর দাবি জানান ভূক্তভোগিরা।

এদিকে উপর্যুপরি বন্যা ও আকস্মিক পাহাড়ি ঢলে দোয়ারাবাজার-বগুলাবাজার সড়কের বেহাল দশায় সুরমা, বগুলঅ, লক্ষীপুর ও বাংলাবাজার (আংশিক) ইউনিয়নের ৫০ গ্রামের যোগাযোগ ব্যবস্থা অচল হয়ে পড়েছে। দোয়ারাবাজার-বালাবাজার, দোয়ারাবাজার-নরসিংপুর ভায়া ব্রিটিশ-বালিউরা, নরসিংপুর-চাইরগাঁও সড়কেরও একই দশা। ফলে নরসিংপুর, বাংলাবাজার ও দোয়ারা সদর (আংশিক) ইউনিয়নের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে।

এ ছাড়া প্রয়োজনীয় লোকবল ও সুষ্ঠ তদারকির অভাবে হেমন্তকালে গ্রামিণ জনপদের রাস্তাগুলোর সংস্কারকাজেও অনিয়মের অভিযোগ উঠলেও প্রতিকার মিলেনি। তবুও প্রয়োজনের তাগিদে শিক্ষার্থী, ব্যবসায়ী ও জরুরি রোগীসহ প্রত্যন্ত এলাকাবাসীকে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বছরজুড়েই চলাচল করতে হয় এসব ভাঙাচোরা রাস্তা দিয়ে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার সোনিয়া সুলতানা বলেন, বর্তমানে সুরমাসহ সকল নদনদী ও হাওর খাল-বিলের পানি ক্রমশ নামতে শুরু করেছে। উপদ্রুত এলাকায় চাল, শুকনো খাবার, রান্নাকরা খাবার, পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবলেট ও বিশুদ্ধ পানি বিতরণসহ আমাদের ত্রাণ তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে।

জনপ্রতিনিধিদের প্রণয়ণকৃত তালিকা মোতাবেক বন্যা পরবর্তী ক্ষয়ক্ষতি পুষিয়ে নিতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হবে বলে জানান তিনি।

সুত্রঃ সিলেটভিউ

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© All rights reserved © 2017 DakshinSunamganj24.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com