রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২:১৯ অপরাহ্ন

pic
সংবাদ শিরোনাম :
শান্তিগঞ্জে ধামাইল গানে গানে লোককবি প্রতাপরঞ্জনকে স্বরণ আমাদের হতে হবে অমায়িক মানুষ : এম এ মান্নান এমপি  পবিত্র শবে বরাত আজ বঙ্গবন্ধু মডেল গ্রাম ডুংরিয়ার সভাপতি নজরুল, সম্পাদক জহিরুল  একুশের প্রথম প্রহরে শান্তিগঞ্জ প্রেসক্লাবের শ্রদ্ধা নিবেদন শান্তিগঞ্জে ভাষা শহীদদের স্মরণে সুলেমান জায়গীরদার অর্গানাইজেশনের  শ্রদ্ধা নিবেদন শান্তিগঞ্জে যথাযোগ্য মর্যাদায় শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন শান্তিগঞ্জে বিজ এর বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান সম্পন্ন দোয়ারার শুটকী তৈরির কাজ পরিদর্শনে শান্তিগঞ্জের সিবিও সদস্যরা সংসদে ব্যারিস্টার সুমনের ভুল ধরিয়ে দিলেন প্রধানমন্ত্রী
নোটিশ :
পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে!! জেলা উপজেলায় প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে বিস্তারিত জানতে : ০১৭১২-৬৪৫৭০৫
করোনার মধ্যে বিদ্বেষের সুনামি বন্ধ করুন

করোনার মধ্যে বিদ্বেষের সুনামি বন্ধ করুন

অনলাইন ডেস্কঃ  
► যুক্তরাষ্ট্রে প্রাণহানি পৌনে লাখ
► এশিয়াতে মৃত্যু ১০ হাজার ছাড়াল
জাতিসংঘ মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস গতকাল বলেছেন, করোনা মহামারির মধ্যে বিদ্বেষ, জেনোফোবিয়া (বিদেশিদের প্রতি অসহিষ্ণু মনোভাব), বলির পাঁঠা বানানোর প্রবণতা ও গুজবের সুনামি চলছে। এ ধরনের আচরণের বিস্তার ঠেকাতে সবাইকে সচেষ্ট হতে হবে।
গুতেরেস বলেন, অনলাইন ও সড়কে বিদেশবিরোধী মনোভাব বেড়েছে। ইহুদিবিদ্বেষী ষড়যন্ত্র তত্ত্বের বিস্তার ঘটেছে এবং কভিড-১৯-কে কেন্দ্র করে মুসলমানদের ওপর হামলা হয়েছে। তা ছাড়া সংবাদিক, তথ্য ফাঁসকারী, স্বাস্থ্যকর্মী, ত্রাণকর্মী ও মানবাধিকারকর্মীরা নিজেদের দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে আক্রমণের শিকার হচ্ছেন।
বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়া এসব বিদ্বেষী আচরণ ঠেকাতে সবাইকে একসঙ্গে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন জাতিসংঘ মহাসচিব। বর্ণবাদী, বিদ্বেষী ও ক্ষতিকর কন্টেন্টগুলো সরিয়ে ফেলতে গণমাধ্যম বিশেষ করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম কম্পানিগুলোকে আহ্বান জানিয়েছেন গুতেরেস।
বৈশ্বিক পরিসংখ্যানভিত্তিক ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্য বলছে, গতকাল বিশ্বজুড়ে শনাক্ত হওয়া করোনা রোগীর সংখ্যা সাড়ে ৩৯ লাখ ছাড়িয়েছে। এর মধ্যে এক-তৃতীয়াংশ বা ১৩ লাখ রোগীই যুক্তরাষ্ট্রের বাসিন্দা।
বাংলাদেশ সময় রাত সাড়ে ১০টা পর্যন্ত বৈশ্বিক মৃত্যুর সংখ্যা পৌনে তিন লাখে পৌঁছেছে। এর মধ্যে অন্তত ৭৭ হাজার জন মারা গেছেন যুক্তরাষ্ট্রে।
ইউরোপের মৃত্যুপুরী ইতালিতে প্রাণহানির সংখ্যা গতকাল ৩০ হাজার ছাড়িয়েছে। এদিকে এশিয়ায় মৃত্যুর সংখ্যা ১০ হাজার ছাড়িয়েছে।
যুক্তরাষ্ট্রে প্রাণহানি পৌনে লাখ
ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্য বলছে, একক দেশ হিসেবে সর্বোচ্চ প্রাণহানির দেশ যুক্তরাষ্ট্রে মৃতের সংখ্যা ৭৭ হাজার ছাড়িয়েছে। সুস্থ হয়েছে প্রায় সোয়া দুই লাখ রোগী। ফলে সেখানে চিকিৎসাধীন মানুষের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১০ লাখ।
এ অবস্থার মধ্যেও দেশটির বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যের ওপর থেকে লকডাউন তুলে নেওয়ার প্রস্ততি চলছে। ইতিমধ্যে গত সোমবার থেকে নির্দিষ্ট ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান খোলার অনুমতি দিয়েছে কমপক্ষে ছয়টি রাজ্য।
স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের আশঙ্কা, বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যের ওপর থেকে লকডাউন তুলে নিয়ে অর্থনীতির চাকা সচল করার পরই দেশটির করোনা পরিস্থিতি আরো ভয়ংকর হয়ে উঠতে পারে। এ নিয়ে দেশটির রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ কেন্দ্রগুলো সরকারকে একাধিকবার সতর্ক করে দিয়েছে। কিন্তু তাদের সতর্কবার্তা আমলে নিচ্ছেন না মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।
এশিয়াতে মৃত্যু ১০ হাজার ছাড়াল
এশিয়ার দেশগুলোতে বৃহস্পতিবার মহামারি করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১০ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। মৃতের এ সংখ্যার প্রায় অর্ধেক ঘটেছে চীনে। শুক্রবার রাত ১টা নাগাদ এ অঞ্চলের বিভিন্ন দেশের সরকারি সূত্রের বরাত দিয়ে এএফপি এ তথ্য জানিয়েছে।
বার্তা সংস্থাটি জানিয়েছে, এশিয়ার বিভিন্ন দেশে মৃতের সংখ্যা বেড়ে মোট ১০ হাজার একজনে এবং আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে মোট দুই লাখ ৬৯ হাজার ২৫ জনে দাঁড়িয়েছে। এশিয়ায় মৃতের এ সংখ্যা ইউরোপের মৃতের সংখ্যার চেয়ে অনেক কম। ইউরোপে কভিড-১৯ ভাইরাসে এ পর্যন্ত এক লাখ ৫১ হাজার ৫৭৬ জন প্রাণ হারিয়েছে।
এদিকে চীনে গত তিন সপ্তাহে করোনাভাইরাসে নতুন করে মাত্র একজনের মৃত্যু হয়েছে। দেশটিতে সরকারি হিসাবে এ পর্যন্ত কভিড-১৯ ভাইরাসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে মোট চার হাজার ৬৩৩ জনে দাঁড়িয়েছে। এশিয়ার দেশগুলোতে করোনাভাইরাসে ক্ষতির দিক থেকে এর পরের অবস্থানে থাকা দেশ ভারতে কভিড-১৯ ভাইরাসে এক হাজার ৭৮৩ জন এবং ইন্দোনেশিয়ায় ৯৩০ জনের মৃত্যু হয়েছে।
জুলাই নাগাদ অস্ট্রেলিয়ায় লকডাউন
তুলে নেওয়ার ঘোষণা
অস্ট্রেলিয়া সরকার জুলাইয়ের শেষ নাগাদ ‘কভিডমুক্ত’ স্বাভাবিক অবস্থায় অর্থনৈতিক কার্যক্রমে ফিরে যেতে তিন ধাপের পরিকল্পনা গতকাল ঘোষণা করেছে। অস্ট্রেলীয় ফেডারেল কর্তৃপক্ষ দেশের বিভিন্ন রাজ্য ও ভূখণ্ডে এই পরিকল্পনা বাস্তবায়নের বিশদ বিবরণ দিয়েছে, এতে করোনায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত বিভিন্ন এলাকায় করোনাজনিত বিধিনিষেধ কোথায় সপ্তাহ অথবা মাসাধিক দীর্ঘস্থায়ী হবে, সে নির্দেশনা রয়েছে।
দুই কোটি ৫০ লাখ জনসংখ্যার দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা সাত হাজারের নিচে এবং ১০০ জনের প্রাণহানি হয়েছে। আন্তর্জাতিক ভ্রমণ নিষিদ্ধ এবং ব্যবসা-বাণিজ্য ও জনসমাগমের ওপর কড়াকড়ি দেশটিতে দৈনিক সংক্রমণ বেশির ভাগ এলাকায় জিরো অথবা এক অঙ্কে নিয়ে এসেছে। সরকারি হিসাবে লকডাউন চলাকালে ১০ লাখের বেশি লোক কর্মহীন হয়ে পড়েছে এবং প্রতি সপ্তাহে অর্থনৈতিক ক্ষতি হয়েছে প্রায় ২৫০ কোটি মার্কিন ডলার।
শুক্রবার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন মহামারি নিয়ন্ত্রণে সাফল্যের প্রশংসা করে করোনার লকডাউনের বিধিনিষেধ শিথিল করার ফ্রেমওয়ার্ক তুলে ধরেন। এ পরিকল্পনায় জুলাইয়ের শেষ নাগাদ আট লাখ ৫০ হাজার লোক তাদের কর্মস্থলে ফিরে আসবে এবং করোনামুক্ত পরিবেশে পুনরায় অর্থনৈতিক কার্যক্রম শুরু হবে।
ট্রাম্পকে পরীক্ষা করা হবে প্রতিদিন
করোনাভাইরাসে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ব্যক্তিগত এক পরিচারক আক্রান্ত হয়েছেন বলে দেশটির গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছে। সাবধানতা অবলম্বনে এখন থেকে প্রতিদিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের শরীরেও ভাইরাসটির উপস্থিতি আছে কি না, তা পরীক্ষা করে দেখা হবে। পরিচারক আক্রান্ত হওয়ার পর ট্রাম্পের শরীরে কভিড-১৯ শনাক্তে পরীক্ষা হলেও তার ফল ‘নেগেটিভ’ আসে। শুধু ট্রাম্পই নয়, ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সের শরীরেও নতুন করোনাভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া যায়নি বলে বৃহস্পতিবার সকালে নিশ্চিত করে হোয়াইট হাউস। সূত্র : এএফপি, রয়টার্স।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© All rights reserved © 2017 DakshinSunamganj24.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com