বৃহস্পতিবার, ১১ অগাস্ট ২০২২, ১১:২৯ অপরাহ্ন

pic
নোটিশ :
পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে!! জেলা উপজেলায় প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে বিস্তারিত জানতে : ০১৭১২-৬৪৫৭০৫
স্বজনদের মধ্যে হতাশা; ২৩ বছরেও বীর মুক্তিযোদ্ধা শফিকুল হক হত্যার বিচার হয়নি!

স্বজনদের মধ্যে হতাশা; ২৩ বছরেও বীর মুক্তিযোদ্ধা শফিকুল হক হত্যার বিচার হয়নি!

স্টাফ রিপোর্টার: বিচারের বাণী নিভূতে কাদেঁ। বিলমিÍত বিচার, বিচার না হওয়ারই শামিল। এ কথাই কি প্রযোজ্য বীর মুক্তিযোদ্ধা শফিকুল হক চৌধুরী বাচ্চু হত্যার বিচারের ক্ষেত্রে? সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার চিলাউড়া হলদিপুর ইউনিয়নের বেতাউকা গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা তৎকালীন জগন্নাথপুর উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক শফিকুল হক চৌধুরী বাচ্চু কে তার বাড়ি সংলগ্ন গাদিয়ালা নামক স্থানে ১৯৯৬ ইং সনের ৭ই জানুয়ারি দিনে দুপুরে সন্ত্রাসীরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ও ঘাই মেরে হত্যা করে লাশ ফেলে রাখে। এ ঘটনার ২৩ বছর অতিবাহিত হলেও আজও এ লোমহর্ষক হত্যা কান্ডের বিচার হয়নি। ফলে স্বজনদের মধ্যে দেখা দিয়েছে হত্যাশা। ঘটনার পরপরই নিহতের বড় ভাই আব্দুল মুকিত চৌধুরী বাদী হয়ে জগন্নাথপুর থানায় ২৯ জনকে আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। তৎসময়ে থানা পুলিশ ২৯ জন আসামীর বিরুদ্ধে প্রাথমিকভাবে অপরাধ প্রমাণিত হওয়ায় চার্জশীট প্রদান করেন। এই হত্যা মামলাটি বর্তমানে সুনামগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ আদালতে বিচারাধীন রয়েছে। মামলা নম্বর ১৩৪/৯৬। ঘটনার দীর্ঘ ২৩ বছর অতিবাহিত হলেও এ হত্যার এখনও বিচার হয়নি। ফলে হত্যা মামলার বাদী ও নিহতের আত্মীয় স্বজন সহ এলাকা বাসীর মধ্যে চরম হতাশা বিরাজ করছে। ইতিমধ্যে এ দীর্ঘ সময়ে মামলার শুনানি ও স্বাক্ষ্য গ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। জানাযায়, গত ১ বছরে রায় ঘোষণার জন্য কম হলেও ৮টি তারিখ ধার্য্য করেন জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক আব্দুল্লাহ আল মামুন। কিন্তুু এখন পর্যন্ত অজ্ঞাত কারণে রায় দেওয়া হচ্ছে না।

এব্যাপারে হত্যা মামলার বাদী নিহতের বড় ভাই আব্দুল মুকিত চৌধুরী যুগান্তরকে বলেন, এই মামলাটি নি¤œ আদালতে ছিল ৩ বছর এবং প্রায় ২০ বছর ধরে জেলা ও দায়রা জজ আদালতে বিচারাধীন রয়েছে। মামলার সকল কার্যক্রম সম্পন্ন হয়ে রায়ের জন্য গত ১ বছরে ৮ টি তারিখ ধার্য্য করে রায় দেওয়া হয়নি। তিনি জানান, মামলার প্রধান আসামী মূল ঘাতক লিয়াকত, রিপন, ও শাহিন পলাতক রয়েছে। আরো কয়েক জন ঘাতক সহ অন্যান্য আসামীরা জামিনে মুক্ত রয়েছে। ইতি মধ্যে ২৯ জন আসামীর মধ্যে ৮ জন মারা গেছেন। তিনি বলেন, আমি এই হত্যা কান্ডের মূল হোতাদের ফাঁসি চাই। দ্রুত মামলাটির রায় প্রদানের জোর দাবী জানাচ্ছি।
এ হত্যা মামলার আইনজীবী আইনুল ইসলামের সাথে আলাপ হলে তিনি যুগান্তরকে বলেন, এ ব্যাপারে আমি বিস্তারিত বলতে পারব না। সরকারি পিপির সাথে আলাপ করলে সবকিছু জানতে পারবেন।
জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পিপি খায়রুল কবির রুমেনের সাথে আলাপ হলে তিনি যুগান্তরকে বলেন, মামলাটির রায় দিতে কেন বিলম্ব হচ্ছে আমি গুরুত্বের সাথে খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিব।
এব্যাপারে নিহতের ছোট ভাই লন্ডন প্রবাসী আব্দুল মোতালেব চৌধুরী যুগান্তরকে বলেন, দুঃখ ভারাক্রান্ত মন নিয়ে আজ প্রায় ৫ বছর ধরে দেশে অবস্থান করছি। ভাই হত্যার বিচারটি দেখার জন্য। কিন্ত ২৩ বছরেও রায় হয়নি। পেসকার কে জিজ্ঞাসা করেছিলাম বারবার রায়ের তারিখ ঘোষণা করে রায় দেওয়া হচ্ছে না কেন। জবাবে তিনি বলেন, মামলা জট থাকায় বিলম্ব হচ্ছে। তিনি দ্রুত রায় প্রদানের জন্য জেলা ও দায়রা জজ আদালতের নিকট জোর দাবী এবং হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানান। তিনি জানান, আমার ভাই ছিলেন রনাঙ্গনের মুক্তিযোদ্ধা। তিনি অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী কন্ঠ ও সাহসী নেতা ছিলেন। তৎকালীন একটি প্রভাবশালী রাজনৈতিক মহলের ষড়যন্ত্রে পরিকল্পিতভাবে সংঘবদ্ধ সন্ত্রাসীরা আমার ভাইকে দিনে দুপুরে নির্মমভাবে হত্যা করে। এলাকাবাসী নেপথ্য ষড়যন্ত্রকারীদের মুখোশ উম্মোচন ও হত্যাকারীদের ফাসিঁ চান।
উল্লেখ্য, বীর মুক্তিযোদ্ধা শফিকুল হক চৌধুরী বাচ্চু সুনামগঞ্জ দাস পার্টির কমান্ডার ও লাল বাহিনীর প্রধান ছিলেন। সুনামগঞ্জ ও আজমিরীগঞ্জের যুদ্ধকালীন সময়ের বিখ্যাত গেরিলা দাস পার্টির কমান্ডার জগৎজ্যোতি দাস হানাদার বাহিনীর হাতে নিহত হওয়ার পর কমান্ডারের দায়িত্ব পালন করেন তিনি। মৃত্যুর আগে তিনি সুনামগঞ্জ জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সহসভাপতি, জগন্নাথপুর উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক, ছাত্র জীবনে তিনি ছাত্রলীগের রাজনীতি সাথে সম্পৃক্ত ছিলেন। তিনি দুই বার উপজেলা চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করে সামান্য ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হন। একজন সাহসী নেতা ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা শফিকুল হক চৌধুরী বাচ্চু। তিনি অন্যায়ের বিরুদ্ধে সব সময় সোচ্চার ছিলেন। তার মত ব্যক্তিকে যেভাবে সন্ত্রাসীরা দিনে দুপুরে হত্যা করেছে তা খুবই মর্মান্তিক ও হৃদয় বিধারক।
জগন্নাথপুর বাসী দ্রুত বিচারের রায় ঘোষণার মাধ্যমে হত্যাকারীদের ফাসিঁ ও বীর মুক্তিযোদ্ধা শফিকুল হক চৌধুরী বাচ্চুর স্মৃতি রক্ষার্থে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সরকারের নিকট জোর দাবী জানিয়েছেন।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© All rights reserved © 2017 DakshinSunamganj24.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com