বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ০৭:০২ পূর্বাহ্ন

pic
নোটিশ :
পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে!! জেলা উপজেলায় প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে বিস্তারিত জানতে : ০১৭১২-৬৪৫৭০৫
দক্ষিণ সুনামগঞ্জের ইনাতনগর প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রতিমন্ত্রীর ৪৭০০০ টাকা অনুদান

দক্ষিণ সুনামগঞ্জের ইনাতনগর প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রতিমন্ত্রীর ৪৭০০০ টাকা অনুদান

এন.এ নাহিদ:: দক্ষিণ সুনামগঞ্জের পশ্চিম পাগলা ইউনিয়নের ইনাতনগর প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আর্থিক অনুদান প্রদান করেছেন বাংলাদেশ সরকারের অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান এমপি। বিদ্যালয়ের উন্নয়ন কাজের জন্য সরকারি বরাদ্দ থেকে ৪৭ হাজার টাকা অনুদান দিয়েছেন তিনি। শুক্রবার দুপুরে প্রতিমন্ত্রীর পক্ষ থেকে প্রতিষ্ঠানটির সভাপতি ও ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ডের সদস্য আলী আহমদের হাতে নগদ অর্থ তুলে দেন পশ্চিম পাগলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নূরুল হক। এসময় উপস্থিত ছিলেন বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সদস্য মাম্মদ আলী, আবদুর রউফ। অন্যান্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন ফয়াজ আলী, সৈয়দুল হক, ছৈয়দুর রহমান, ইনাতনগর জামে মসজিদের মোতয়াল্লী কটু মিয়া, ইমাম মাওলানা জসিম উদ্দিন, স্থানীয় বাসিন্দানূর উদ্দিন, জহির মিয়া ও জিয়া উদ্দিন প্রমুখ।

ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নূরুল হক বলেন, ‘প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান এলাকার উন্নয়নে কাজ করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। তিনি ভালো করেই জানেন একটি এলাকাকে উন্নত করে তুলতে হলে আগে তাদের শিক্ষিত করে তুলতে হবে। তাই তিনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান তৈরিতে বেশি বেশি কাজ করতে আগ্রহী।’ চেয়ারম্যান এ প্রতিবেদককে জানান, ‘পশ্চিম পাগলা ইউনিয়নে এফআইভিডিবির যে প্রতিষ্ঠানগুলো তারা ছেড়ে গিয়েছিলো তার থেকে কাদিপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়কে সরকারি করণ ও চন্দপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়কে একটি বেসরকারি সংস্থাকে পরিচালনার জন্য ব্যবস্থা করিয়েছেন। এছাড়াও গণিপাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়কে এফআইভিডিবির কাছে পুনরায় ফিরিয়ে দিয়েছেন প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান। এবং যদি ইনাতনগরবাসী ৩৩ শতক জায়গা অনুদান দেন তাহলে সরকারি বিদ্যালয় করারও আশ্বাস দিয়েছেন তিনি।’

উল্লেখ্য, ইনাতনগর প্রাথমিক বিদ্যালয় ঝাঁকঝমকপূর্ণভাবেই শুরু করেছিলো ফ্রেন্ড ইন ভিলেজ ডেভেলাপমেন্ট বাংলাদেশ (এফআইভিডিবি)। ২০১৩ সালে অনুদান সংকট দেখিয়ে গ্রামবাসীর কাছে হস্তান্তর করে দায়ভার ছেড়ে দেয় তারা। এরপর থেকেই খুঁড়িয়ে চলতে থাকে প্রতিষ্ঠানটি। শিক্ষক ও গ্রামবাসীর যৌথ আবেদনের ভিত্তিতে ইতোমধ্যে যথাক্রমে ১৯ হাজার, ১৫ হাজার ও সবশেষে ৪৭ হাজার টাকা দিয়েছেন প্রতিমন্ত্রী এবং ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান নূরুল হকও দুইবারে ইউনিয়ন পরিষদের বরাদ্ধ থেকে ১৫ হাজার টাকা করে মোট ৩০ হাজার টাকা অনুদান দিয়েছেন।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© All rights reserved © 2017 DakshinSunamganj24.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com