শনিবার, ২৫ Jun ২০২২, ০৪:৩৭ অপরাহ্ন

pic
নোটিশ :
পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে!! জেলা উপজেলায় প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে বিস্তারিত জানতে : ০১৭১২-৬৪৫৭০৫
বাঙালির ব্রাজিল- আর্জেন্টিনার সমর্থনের ভূত।

বাঙালির ব্রাজিল- আর্জেন্টিনার সমর্থনের ভূত।

দরজায় কড়া নাড়ছে রাশিয়া ফুটবল বিশ্বকাপ। আর আমাদের দেশে ইতোমধ্যেই ভার্চুয়াল জগত, জাতীয়, স্থানীয় পত্রিকা, চায়ের দোকান, অফিস পাড়াসহ প্রায় সব জায়গা বিশ্বকাপ ফুটবল মাতমে গরম হয়ে ওঠেছে। যার বেশির ভাগ আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু ব্রাজিল না আর্জেন্টিনা! নেইমার না মেসি! কোন দল নিবে রাশিয়া বিশ্বকাপ? কার
হাতে ওঠবে মহা কাঙ্ক্ষিত সেই কাপ? ইতোমধ্যেই শুরু হয়ে গেছে প্রিয় দলের পতাকা কেনার ধুম, প্রিয় খেলোয়ারের নাম্বার পরিহিত জার্সি।ব্রাজিল আর্জেন্টিনা ছাড়া যে আর কোনো দল কাপ নিতে পারে বা বিশ্বকাপে আছে তা যেন মানতে নারাজ অধিকাংশই বাংলাদেশিরা। যদিও গত কয়েক বিশ্বকাপ ধরে প্রায় নিয়মিত কাপহীন থাকতে হচ্ছে এ দেশের প্রিয় দুই দলের। তারপরও ব্রাজিল আর্জেন্টিনা বলে কথা!অবশ্য; বাঙালির চিরায়ত এই ব্রাজিল আর্জেন্টিনা প্রীতির হয়তো অনেক কারণ থাকতে পারে! এর অন্যতম কারণ-বিশ্বকাপ ফুটবল
আয়োজনের পর থেকেই লাতিন আমেরিকার দলগুলো যেমন ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা, উরুগুয়ে, চিলি, প্যারাগুয়ে সহ অনেক দলই ফুটবলে বরাবরই শৈল্পিক ফুটবল নিয়ে হাজির হয়। সেই দিক দিয়ে মধ্যপ্রাচ্য তথা এশিয়া, ইউরোপ কৃত্রিম বা রোবটীয় ফুটবল নিয়ে হাজির হয়।এ হিসেবে বলা যায় বাঙালি বড়ই রুচিবান। কিন্তু কথা হলো লাতিনের ফুটবলে যদি বাঙালি মুগ্ধই হয় তাহলে এ দেশে উরুগুয়ের তো
কোনো সমর্থক দেখি না বা খুঁজে পাই না! হ্যাঁ,যদি বলেন দল সমর্থনে কে কয়বার কাপ নিলো সেটাও একটা বিচার্য বিষয়!তবে সে দিক দিয়ে কি উরুগুয়ে আর্জেন্টিনার থেকে কম? হ্যাঁ, জানি আর্জেন্টিনার ম্যারাডোনা ছিলেন আর ব্রাজিলের ছিলেন পেলে! দুজনই ছিলেন ফুটবলের ম্যাজিশিয়ান। কিন্তু ফ্রান্সের? ফ্রান্সেরও তো ছিলো আরেক জাদুকর জিনেদিন জিদান। তার ফুটবল জ্ঞানে কেনো মুগ্ধ হলো
না বাঙালি যতোটা ব্রাজিল-আর্জেন্টিনায় মনে রাখবেন, আমাদের দেশে যারা এখন ফুটবল দেখে তাদের বেশিরভাগই পেলে ম্যারাডোনার খেলা দেখেনী।তারা খেলা দেখেছে দেখছে,জিদানের,ফোরলানের,ক্রিশ্টিয়ানো রোনালদোর,ব্যাকহামের,সালাহর,গ্রিজম্যান,মুলার,ক্লোসার,ডি রসি,রুবেনদের। তবুও তাদের খেলা তাদের টানছে না তাদের দেশ আমাদের টানছে না। ৪ বার বিশ্বকাপজয়ী জার্মানি,হল্যান্ড,ইতালি
বরাবরই সেমিফাইনাল খেলা হট ফেবারিট দেশ,এই সব দেশ কখনই বাঙালির অকুণ্ঠ সমর্থন আদায় করতে পারছে না অথচ ৩২ বছর ধরে কাপহীন,উল্লেখ যোগ্য সংখ্যক বিশ্বকাপ বাছাই পর্ব পেরুতে না পারা দল আর্জেন্টিনা বছরের পর বছর অকুণ্ঠ সমর্থন আদায় করে নেয় বাঙালিদের-যদিও ব্রাজিল পরিসংখ্যানের দিক দিয়ে এখানে অনেকটাই এগিয়ে। কিন্তু এর পরও কেন মেসি-নেইমার? এর একটাই কারণ অন্ধতা, ফুটবল জ্ঞানের অভাব। মনে রাখুন এ দেশে এখনও দুই তৃতীয়াংশ ভোটার মার্কা দেখে ভোট দেয় আর দলটা যদি বলেন? তা তো সবারই জানা। এ ভোট জ্ঞান বাঙালির পরম্পরায় পাওয়া। ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার সমর্থনও কি নয়? এর উত্তর যদি হয় হ্যাঁ, তবে সেখানে চিরায়ত সৌন্দর্যের উপস্থিতি কথা চিন্তা করা বোকামী! আর মূলত এটাই বাঙালির ব্রাজিল আর্জেন্টিনা সমর্থনের ভূত। যারা নিয়মিত ফুটবল দেখেন, কিছুটা হলেও বৈশ্বিক ফুটবলের খবর রাখেন তারা জানেন, ফুটবল আজ আগের জায়গায় নেই। এখন টোটাল ফুটবলের যুগ। সব দলই সমান।কী এশিয়া, কী ইউরোপ! ফুটবল জ্ঞানে কোন দলই এখন কারো থেকে কেউ পিছিয়ে নেই। ফুটবলের বাজারে এখন যে কোনো দলই বিশ্বকাপ নিতে পারে। যার উজ্জ্বল উদাহরণ স্পেন। আবার পরের বিশ্বকাপে প্রথম রাউন্ড থেকে স্পেনের বাদ যাওয়াটাও কি কম উদাহরণ নয়? যাই হোক,বাঙালি ভাগ হোক ব্রাজিল আর্জেন্টিনায়। ফুটবলে ফুটবলে। সমস্যা নেই। তবে তারা এক হোক সাম্যে, মুক্তির মিছিলে, জীবন অধীকার আদায়ের খেলায়। এ দেশের মানুষ জানুক, জীবনের আরেক নামই তো ফুটবল! এখানে কেউ লাথি খায় আর কেউ লাথি দেয়!

মানুষ যাতে ভুলে না যায়; আমরা কোন কট্টর সমর্থক নই(এটা খারাপ)।
আমরা খেলবো,খেলা দেখবো,উপভোগ করবো।সবার হাসি-কান্না,হার-জিত গোল খাওয়া,গোল দেওয়া সবকিছু একে অন্যের মধ্যে ভাগ করে নেবো। আর হে পতাকা সব দেশেরই সম্মানের জিনিস। আমরা অন্য দেশের পতাকা টানাই এতে কোন সমস্যা নেই তবে আমাদের পতাকাটাও যেনো সবার ওপরে থাকে; ভুলে যাবো না।

লেখক, সুলেমান কবির- প্রভাষক,বিশ্বনাথ ডিগ্রী কলেজ।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© All rights reserved © 2017 DakshinSunamganj24.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com