শনিবার, ২৫ Jun ২০২২, ০৪:৪৩ অপরাহ্ন

pic
নোটিশ :
পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে!! জেলা উপজেলায় প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে বিস্তারিত জানতে : ০১৭১২-৬৪৫৭০৫
ফয়ছল আহমদ এর কবিতা- ‘স্বর্ণলতিকা’

ফয়ছল আহমদ এর কবিতা- ‘স্বর্ণলতিকা’

অদ্ভুত একটি প্রজাতি স্বর্ণলতিকা,

তার নেই কোন শিকড় কিংবা পাতা।
পরাশ্রয়ী, পরনির্ভরশীল যার জীবন,
তবুও! পরমাথায় ঝেকে বসে পায় পূর্ণতা।

স্বর্ণলতিকা আশ্রয় খোজে পায় বড় কোন গাছে,
ভাবতে থাকে! তারচেয়ে বড়, আর কি কেহ আছে ! !
আশ্রয় পেয়েই, বিষ দাত বসিয়ে হাসে!
রস চুষে-চুষে পুষ্ঠ হতে থাকে অনবরত,
গাছটা বুঝতেই ! পারেনা অবুঝের মত,
বড় কোন শঙ্কা যে আছে পাছে!!

স্বর্ণলতিকার চ্ক্-চক্ করে গায়ের রং!!
বাড়ন্ত বাহু মেলে ধরে ছাতা,
ধীরে-সুস্থে! পেচিয়ে-পেচিয়ে একদিন গাছটার,
ঢেকে ফেলে পুরো মাথা!!!

গাছটা সেদিন হয়ে যায়, বড় অসহায় !
নাহি সরাতে পারে লতা, শ্বাস নিতেও কষ্ট পায়!!
পত্র-পল্লব গাছটার, ঢাকা পড়ে কুঁকড়ে যায়,
গাছটা হয় আড়াল, শুধু স্বর্ণলতিকাই দেখা যায়।

পত্র-পল্লবহীন গাছ, খাদ্য সংকটে নেতিয়েপড়ে!
সৌর্য-বীর্য ! আর সুশ্রীতা তার যায় যে উড়ে,
গাছটা দীর্ঘশ্বাস ফেলে! আর বলে আহ্ রে!!
এতদেখি! খাল কেটে কুমির আনিলাম ঘরে।

গাছটা এবার খাবার-দাবার যত আহরণ করে,
সিংহ ভাগই বিলাতে হয়, স্বর্ণলতিকার তরে।
শুধু কি তাই? বলি এবার ভাই –
স্বর্ণলতিকারে আগলাতে হয় রোদ, বৃষ্টি, ঝড়ে।

স্বর্ণলতিকা এবার আকাশের সাথে বলে কথা,
নেতানো গাছটা তার বড়ই ! মাথা ব্যাথা!!
পূর্বে ছিল অনেক রস, বাহারী পাতা,
এখন বড্ড বুড়ু! বেঁচে আছে অযথা।

দিন-দিন কমতে থাকে স্বর্ণলতিকার আহার,
মলিন হয়ে আসে রূপ-যৌবনের বাহার !
চিপতে-চিপতেও! যখন মিলেনা কোন রস,
বাহুগুলি স্বর্ণলতিকার হয়ে আসে অবস।

প্রখর সূর্য তাপে ধীরে-ধীরে লতা যায় শুকায়ে,
স্বর্ণলতিকা ভাবে এইবার, বাঁচিব কোন উপায়ে!!!

সূর্যি মামা স্বর্ণলতিকারে দিল পুড়ায়ে!
ঝড়ো বাতাস ! ছাই গুলা সব নিল উড়ায়ে।

গাছটা এবার হাঁফছেড়ে বাঁচল,
নতুন পত্র-পল্লবে, সবুজ হাসি হাসল!!

ফয়ছল আহমদ, প্রভাষক (ইতিহাস) ডুংরিয়া হাই স্কুল এন্ড কলেজ।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© All rights reserved © 2017 DakshinSunamganj24.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com