রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২, ০২:৫৬ অপরাহ্ন

pic
সংবাদ শিরোনাম :
অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে আর্জেন্টিনা সুনামগঞ্জের শান্ত কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক মনোনীত প্রথম দল হিসেবে বিশ্বকাপের কোয়ার্টারে নেদারল্যান্ডস আর্জেন্টিনাকে হারানোর ৩২ বছর পর ক্যামেরুনের ব্রাজিলবধ ২-০ গোলে হারিয়েও ঘানার সঙ্গে বিদায় উরুগুয়ের পর্তুগালকে হারিয়ে রোনালদোদের সঙ্গে দ্বিতীয় রাউন্ডে কোরিয়া ব্রাজিল সাপোর্টারদের মোটরসাইকেল শোভাযাত্রা আর স্লোগানে স্লোগানে মুখরিত শান্তিগঞ্জ শান্তিগঞ্জে বাংলাদেশ এনজিও ফাউন্ডেশন দিবস উদযাপন ২৮ তম বিসিএস ফোরাম সিলেট’র সভাপতি ডাঃ জসিম, সম্পাদক সাগর কোস্টারিকাকে ৪-২ গোলে হারিয়েও বিদায় জার্মানির
নোটিশ :
পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে!! জেলা উপজেলায় প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে বিস্তারিত জানতে : ০১৭১২-৬৪৫৭০৫
চাকরির বাজারে কোটা ও বয়স প্রসঙ্গে

চাকরির বাজারে কোটা ও বয়স প্রসঙ্গে

হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এক সময় স্বপ্ন দেখেছিলেন,এক সমতার বাংলাদেশের, কেননা তখন ছিল বৈষম্যের পাকিস্থানি যুগ। ফলে সেই বৈষম্যের পাকিস্থান থেকে সমতার বাংলায় উত্তরণের জন্যই বাংলার মানুষ স্বাধীনতার যুদ্ধ করে। আজ স্বাধীনতার এত বছর পর সেই পাকিস্থানি বৈষম্যগুলো দিন দিন বাড়ছে। সমতার বাংলা আজ বৈষম্যের বাংলা। এ বৈষম্যের নাম কোটা! কোটা মূলত এক করুণার নাম, খয়রাতি চাকরির নাম। ৩ ভাগ মানুষের জন্য ৫৬, আর বাকিদের জন্য ৪৪ ভাগ, এই অযৌক্তিক নির্লজ্জ বৈষম্যের নাম কোটা। অবশ্য এ বৈষম্য যে শুধু বর্তমান সরকারের সৃষ্টি তা নয় অন্যান্য সরকারও ক্ষমতায় থাকতে কখনই পিছিয়ে ছিল না। এখন প্রশ্ন হতে পারে, গণতন্ত্র যদি জনগণের দ্বারা পরিচালিত জনগণেরই সরকার হয় তাহলে অযৌক্তিক ৫৬ ভাগ কোটা আর বয়স ৩০ দিয়ে সাধারণ
জনগণের বুকেই কি ছুরি মারছে না তথাকথিত গণতন্ত্র? আসলে বৈষম্যের পেছনে গণতন্ত্রের হাত থাকে না থাকে বড় বড় স্বার্থের হাত। এটাকে আমরা পুঁজিবাদী আগ্রাসন বা সিস্টেম হিসেবে দেখতে পারি। যেমন: মুক্তিযোদ্ধার দল হয়েও বিএনপির ক্ষমতায় আসার জন্য জামাত-শিবিরের সাথে হাত মিলানো অথবা আওয়ামীলীগ প্রগতিশীল রাজনৈতিক দল হয়েও এরশাদের সাথে হাত মিলিয়ে গ্রীক মূর্তি অপসারণ, কওমী স্বীকৃতি এসব মুখে বললেও এটা পুঁজির বাজারে ভোটের রাজনীতি, স্বার্থের রাজনীতি তা সাধারণ মানুষ সহজেই বুঝতে পারেন। তাছাড়া দেখুন, রাষ্ট্র আজ দুই ভাগে বিভক্ত, ১. কোটাদারী, ২. সাধারণ। গতকাল যে সকল পুলিশ আন্দোলনরত ছাত্রদের ওপর হামলা করলো তার বেশির ভাগ পুলিশই কোটা বা খয়রাতিদানে চাকরিতে এসেছে, ফলে তারা এটা মানবে কেন? তাছাড়া লাখো লাখো ছাত্ররা যখন কোটা বাতিলের পক্ষে তখন কি স্বয়ং মুক্তিযোদ্ধারাই লজ্জায় পড়ে যান না? এখন প্রশ্ন হতে পারে, রাষ্ট্র ভাগ চায় কেন? উত্তর সহজ: স্বার্থ, ব্যবসা ও পুঁজিবাদ ভাগ কর শাসন কর নীতির ওপরই বরাবর নিরাপদ, বরাবর জিয়ন থাকে। হ্যাঁ, স্বীকার করছি মুক্তিযোদ্ধারা আমাদের দেশের শ্রেষ্ঠ সন্তান, তাঁদের অবস্থান সবসময়ই বুকের বামপাশে তাই বলে স্বাধীনতার এত বছর পরেও মুক্তিযুদ্ধা কোটা? কেন? এতে কি স্বয়ং মুক্তিযোদ্ধাদেরই পরোক্ষভাবে খাটো করা হচ্ছে না? এদিকে চাকরির বাজারে বয়স ৩০ রাখা হয়েছো। ৩০ এর ভেতরে কোন যুবক চাকরি না পেলে সে রাষ্ট্রের অকেজো সন্তান অথচ সরকার যদি জনগণেরই হয় তাহলে সে কিভাবে রাষ্ট্রের বৃহৎ শক্তিকে অকেজো করছে? আমাদের দেশ গরিব দেশ, এখানে সম্পদ সীমিত অভাব অসীম, এখানে দুর্নীতি অসীম, টেন্ডারবাজী
অসীম, হত্যা-খুন, ধর্ষণ অসীম! হবেই না বা কেন? যতদিন রাষ্ট্র বৈষম্যের দিকে হাঁটবে, রাষ্ট্র যতদিন ৩০ আর ৫৬ যাতাকলে অকেজো সন্তান তৈরি করতে থাকবে, রাষ্ট্রও ততদিন স্বল্পোন্নত অকেজো মানবীক মূল্যহীন জঙ্গলের দিকে হাঁটবে। তবে আশার কথা অন্য জায়গায় বর্তমান মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাঙালির শ্রেষ্ঠ নায়ক বঙ্গবন্ধুর কন্যা। তিনি ভালো করেই জানেন
সোনার বাংলা নিয়ে পিতার সোনার স্বপ্নকে। তিনি জানেন, কিভাবে রাজাকারদের বিচারের আওতায় এনে ফাঁসি দিতে হয়, কিভাবে দাঁড়াতে হয় রোহিঙ্গাদের পাশে, হাওর পাড়ের মানুষদের পাশে; ভরসা এখানেই। পরিশেষে বলি- আন্দোলন হোক, প্রতিবাদ হোক, তারুণ্যের স্পর্ধাকে বরাবরই ইতিহাস সম্মান করে, সোনার বাংলায় কোটা ও বয়স উন্মোক্ত করা হোক। জয় বাংলা।

-লেখক,সুলেমান কবির
প্রভাষক,বিশ্বনাথ ডিগ্রী কলেজ-সিলেট।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© All rights reserved © 2017 DakshinSunamganj24.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com