বুধবার, ১৭ অগাস্ট ২০২২, ০৫:৩৬ অপরাহ্ন

pic
নোটিশ :
পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে!! জেলা উপজেলায় প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে বিস্তারিত জানতে : ০১৭১২-৬৪৫৭০৫
সুনামগঞ্জের বিশ্বম্ভপুর শিশু ধর্ষণের অভিযোগে ভন্ডফকির গ্রেফতার

সুনামগঞ্জের বিশ্বম্ভপুর শিশু ধর্ষণের অভিযোগে ভন্ডফকির গ্রেফতার

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:: সুনামগঞ্জের বিশ্বম্ভরপুরে হাসান নামের এক ব্যাক্তি ও তার সহযোগিদের বিরুদ্ধে ৭ বৎসর বয়সের এক শিশুকে গণর্ধষণের অভিযোগ ওঠেছে। নির্যাতিত শিশুটি স্থানীয় একটি বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণীর ছাত্রী।
নির্যাতনের শিকার শিশুটি ও তার স্বজনরা জানায়, গত মঙ্গলবার রাত ৮ টার দিকে উপজেলার সলকুবাদ ইউনিয়নের বাঘবেড় গ্রামে সলুক শাহ ওরস চলছিলো। ওরস চলাকালীন সময়ে ধর্ষণের শিকার শিশুটিকে বখাটে হাসানও তার সহযোগিরা সবার অলেক্ষ্য মুখে চাপা দিয়ে পার্শ্ববর্তী একটি পাকা ভবনের পিছনে নিয়ে গিয়ে নির্যাতন করে। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে এলাকাবাসী উদ্ধার করে। এলাকাবসী পরে স্বজনদের খবর দিলে তারা শিশুটিকে গুরুতর আহত অবস্থায় বাড়ি নিয়ে যায়। পরে তাকে চিকিৎসার জন্য সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিয়ে আসলে সেখানে কর্তব্যরত ডাক্তার শিশুটির উন্নত চিকিৎসার জন শিশুটিকে রাতেই সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। এঘটনায় আক্তাপাড়া গ্রামের হাসান মিয়া (৪৫) নামের এক ফকির কে আটক করেছে পুলিশ। শিশুটির চাচা মো: তাজুল ইসলাম অভিযোগ করে বলেন, নির্যাতনের শিকার শিশুটি বাঘবের সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণীতে লেখাপড়া করে। মঙ্গলবার সে বাড়ির পাশে ওরস দেখতে যাওয়ার পথে তাকে ৩/৪ জন যুবক মুখে চাপা দিয়ে দিয়ে একটি পাকা ভবণের পেছনে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে ও রক্তাক্ত অবস্থায় ফেলে যায়। পরে এলাকাবাসী মেয়েটিকে উদ্ধার করে বাড়ি নিয়ে আসে ও স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করে। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে সুনামগঞ্জ সদর হসপাতালে নিয়ে আসা হলে সেখানকার ডাক্তার মেয়েটিকে উন্নত চিকিৎসার জন্য সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে। ফুফু মোছামৎ রাবেয়া খাতুন জানান,মেয়েটিকে উদ্ধার করে বাড়ি নিয়ে আসলে দেখা যায় তার পরণের কাপড়ে চোপচোপ রক্তের দাগ লেগে আছে। পরে তাকে বাথরুমে নিয়ে গেলে শিশুটির মা পরিবারের মহিলারা দেখতে পান শিশুটির যৌনাঙ্গ দিয়ে অনবরত রক্ত পড়ছে। পরে তাকে তারা চিকিৎসার জন্য সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিয়ে আসেন। তখনও শিশুটির গোপন স্থান থেকে রক্তপাত হচ্ছিল। বিশ্বম্ভরপুর থানার ওসি মোল্লা মনির জানান, রাত ১২ টার দিকে ওরস এলাকার একটি মজমা থেকে তাকে আটক করা হয়েছে। সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালের চিকিকিৎস ডাঃ বেঞ্জামিন গোমেজ বলেন, মঙ্গলবার রাত পৌনে দশটার দিকে শিশুটিকে তার স্বজনরা সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগে নিয়ে আসে। তখন শিশুটির প্রচুর রক্তপাত হচ্ছিল। কোন অবস্থায় মেয়েটি রক্তপাত বন্ধ করতে না পেরে গুরুতর আহত শিশুকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপালে প্রেরন করেন। এসময় রক্তপাত চলছিল ও তার পরণের পায়জামা রক্তে ভিজে গিয়ে ছিলো।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© All rights reserved © 2017 DakshinSunamganj24.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com