রবিবার, ২৬ Jun ২০২২, ০৮:২৭ পূর্বাহ্ন

pic
নোটিশ :
পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে!! জেলা উপজেলায় প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে বিস্তারিত জানতে : ০১৭১২-৬৪৫৭০৫
সুনামগঞ্জের বিশ্বম্ভরপুরে কালবৈশাখী ঝড় ও শিলাবৃষ্টিতে ১১ গ্রামে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি

সুনামগঞ্জের বিশ্বম্ভরপুরে কালবৈশাখী ঝড় ও শিলাবৃষ্টিতে ১১ গ্রামে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি::
সুনামগঞ্জের বিশ্বম্ভপুর উপজেলার ভাটিপাড়া, বাগময়না, চিতলাহাটি, দূর্গাপুর, জগন্নাথপুর, কিত্তারহাটি,ললিয়াপুর,মানিকটিলা,ওমরপুর,বসন্তপুর,উলাসনগরসহ ১১টি গ্রামে শিলা বৃষ্টিতে চার শতাধিক বসতঘরের চাল বিধ্বস্থ হয়েছে। এসব গ্রামের কয়েক হাজার মানুষ পরিবারপরিজন নিয়ে মানবেতর দিনযাপন করছেন। উপজেলার দক্ষিণ বাদাঘাট ইউনিয়নের ১১ টি গ্রামের উপর দিয়ে প্রচন্ড ঝড়োবাতাস সহ কালবৈশাখী ঝড় বয়ে যায়। প্রায় ত্রিশ মিনিটের শিলাবৃষ্টির কারনে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে,শিলাবৃষ্টিতে চার শতাধিক বসতঘরের চাল ছিদ্র হয়ে গেছে। উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিস সুত্রে জানাযায়,দক্ষিণ বাদাঘাট ইউনিয়নের দেড়শ ঘর শিলাবৃষ্টিতে পুরোপুরো বিধ্বস্থ হয় এবং কিছুঘর আংশিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগন ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা পরিদর্শন করে প্রয়োজনীয় সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন। কিন্তু এখন পর্যন্ত কোন সাহায্য সহযোগিতা তারা পাননি। দূর্গাপুর গ্রামের পরীমনি,মোছাঃ মাহমুদা আক্তার বলেন,শুক্রবার বিকেলে বড়বড় ফাত্তর আমরার টিনের চালও পড়ছে,মনে অইছে জেন কেউ বন্দুক দিয়া চালের উপর গুলি করতাছে এভাবেই। ফাত্তর পইরা ঘর ছিদ্রি অইগেছে থাকবার মতো কোন জয়াগা নাই। হিল পইরা নয়া টিনের চাল ফেরফের অইগেছে। পোলাপানরে লইয়া কোন রকম জান বাঁচাইছি। দূর্গাপুর গ্রামের মহিবুর রহমান বলেন,এমন টিকে হিল পড়ছে খালি টাসটাস শব্দ হুনাগেছে। কানে কপালে ঠিয়া লাইগা গেছে। এইরকম হিল পড়া তিনি জীবনেও দেখেনি। দক্ষিণ বাদাঘাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এরশাদ মিয়া বলেন,শিলাবৃষ্টিতে তার ইউনিয়নের ১১ টি গ্রামের আট শতাধিক বসত ঘর ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগন ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা পরিদর্শন করেছেন। কিন্তু এখানো কোন সাহায্য সামগ্রী ক্ষতিগ্রস্থদের মধ্যে বিতরণ করা হয়নি। তিনি মানুষের গৃহ নির্মাণের জন্য প্রয়োজনীয় সহযেগিতা কামনা করেন। উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোঃ মানিক মিয়া বলেন,ক্ষতিগ্রস্থদের তালিকা তৈরী করে প্রয়োজনীয় সহযোগিতা করা হবে। বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সমীর বিশ্বাস বলেন,কাল বৈশাখী ঝড়ে ও শিলাবৃষ্টিতে উপজেলার সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হয়েছে দক্ষিণ বাদাঘাট ইউনিয়নের ১১ টি গ্রামে। ক্ষতিগ্রস্থ গ্রামগুলো জেলা ও উপজেলা প্রশাসনে উর্ধ্বতন কর্মকতাগন পরিদর্শন করেছেন। তাদের পুর্নবাসনে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে পত্র প্রেরণ করা হয়েছে। এছাড়া প্রশাসনের পক্ষ থেকে তাদেরকে সহযোগিতা করা হবে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© All rights reserved © 2017 DakshinSunamganj24.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com