বুধবার, ২৯ Jun ২০২২, ০৩:১৭ পূর্বাহ্ন

pic
নোটিশ :
পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে!! জেলা উপজেলায় প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে বিস্তারিত জানতে : ০১৭১২-৬৪৫৭০৫
বঙ্গবন্ধুকে কটাক্ষের অভিযোগে ঢাবি শিক্ষকের শাস্তি দাবি

বঙ্গবন্ধুকে কটাক্ষের অভিযোগে ঢাবি শিক্ষকের শাস্তি দাবি

দক্ষিণ সুনামগঞ্জ২৪ ডেস্ক:
জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে কটাক্ষ করে নিবন্ধ লেখায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষকের শাস্তির দাবি উঠেছে। মার্কেটিং বিভাগের শিক্ষক অধ্যাপক ড.মোর্শেদ হাসান খানের শাস্তি চেয়ে বিবৃতি দিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি বিক্ষোভ করেছে ছাত্রলীগ। মঙ্গলবার দুপুরে ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের সামনে মিছিল ও বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে এই শিক্ষককে ক্যাম্পাসে অবাঞ্ছিতও ঘোষণা করে আওয়ামী লীগ সমর্থক ছাত্র সংগঠনটি। স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে দৈনিক নয়া দিগন্তে প্রকাশিত জ্যোতির্ময় জিয়া শিরোনামে এক নিবন্ধে মোর্শেদ হাসান জাতির জনকের ভূমিকাকে খাটো করেছেন বলে অভিযোগ। নিবন্ধটিতে লেখা হয়েছিল-আওয়ামী নেতাদের বেশিরভাগই তাদের পরিবার-পরিজনসহ ভারত চলে গেলেন,এদেশবাসীকে মৃত্যুর ফাঁদে ফেলে দিয়ে নেতৃত্বহীন অবস্থায়। যাকে ঘিরে এই দেশের মানুষ মুক্তির স্বপ্ন দেখতো সেই শেখ মুজিবুর রহমানও। স্বাধীনতার ডাক এসেছিল মুজিব গ্রেফতার হওয়ার পর,তার আগে নয়। আমার জানামতে তিনি কোন সময় স্বাধীনতার ঘোষণা দেননি। জিয়াউর রহমান স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়েছিলেন বলে তার দল বিএনপি দাবি করে,যদিও বঙ্গবন্ধুর ঘোষণার বিষয়টি আদালতেও মীমাংসিত। নয়া দিগন্ত পত্রিকাটি বিএনপির জোটসঙ্গী বাংলাদেশের স্বাধীনতাবিরোধী দল জামায়াতে ইসলামীর নেতাদের পৃষ্ঠপোষকতায় প্রতিষ্ঠিত দাবি করে তা বন্ধের দাবি উঠেছিল গণজাগরণ মঞ্চ থেকে। সোমবার ওই সংবাদপত্রে লেখাটি দেখার পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির এক বৈঠকে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃতি এবং বঙ্গবন্ধুর শাসনামল নিয়ে মিথ্যা,বানোয়াট ও মনগড়া তথ্য পরিবেশনের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয়। সমিতির এক বিবৃতিতে বলা হয়,এধরনের ধৃষ্টতাপূর্ণ বক্তব্য প্রদান বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধের সাংবিধানিক স্বীকৃতির গুরুতর লঙ্ঘন ও বাংলাদেশের অস্তিত্বকে প্রশ্নবিদ্ধ করার শামিল। এদিকে ছাত্রলীগের সমাবেশে সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসাইন বলেন,জাতির জনককে নিয়ে কটূক্তি করে ড.মোর্শেদ হাসান যে সাহস দেখিয়েছেন,আমরা বিশ্বাস করি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে। ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে আমরা তাকে বিশ্ববিদ্যালয়ে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করছি। ড.মোর্শেদের শাস্তি চেয়ে বুধবার উপাচার্য অধ্যাপক মো.আখতারুজ্জামানকে স্মারকলিপি দেওয়া হবে বলেও জানান তিনি। প্রশাসনের উদ্দেশে জাকির বলেন,অতি দ্রুত ব্যবস্থা নিতে হবে অথবা তাকে নিজ থেকে পদত্যাগ করতে হবে। নতুবা ছাত্রলীগ জানে কীভাবে দাবি আদায় করতে হয়। এই বিষয়ে অধ্যাপক মোর্শেদ হাসানের কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© All rights reserved © 2017 DakshinSunamganj24.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com