শুক্রবার, ১২ অগাস্ট ২০২২, ১২:০৬ পূর্বাহ্ন

pic
নোটিশ :
পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে!! জেলা উপজেলায় প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে বিস্তারিত জানতে : ০১৭১২-৬৪৫৭০৫
পুরুষের চেয়ে নারী বেশী সৎ-প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম

পুরুষের চেয়ে নারী বেশী সৎ-প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম

দক্ষিণ সুনামগঞ্জ২৪ ডেস্ক:
কর্মক্ষেত্রে সততার বিচারে নারীরা পুরুষদের চেয়ে এগিয়ে আছে বলে দাবি করেছেন তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম। তিনি বলেছেন,নারী পুরুষদের অপেক্ষাকৃত বেশি সৎ,অপেক্ষাকৃত নিজের কাজকে অনেক বেশি সততা ও দৃঢ়তার সাথে করতে পারে। ৮মার্চ আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে পল্লী কর্ম-সহায়ক ফাউন্ডেশনে মঙ্গলবার আয়োজিত এক আলোচনা অনুষ্ঠানে একথা বলেন মন্ত্রিসভার এই নারী সদস্য। নারীরা যে পুরুষদের চেয়ে সৎ,তার পক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বক্তব্যও উদ্ধৃত করেন তারানা। প্রধানমন্ত্রী নিজেই নারীবান্ধব। তিনি সবসময় বলেন,মহিলাদের আরও বেশি দায়িত্ব দাও,মহিলারা সৎ। বাংলাদেশে সমাজ এখনও নারীরা যোগ্যতা অনুযায়ী দায়িত্ব দিতে পুরোপুরি প্রস্তুত হয়নি বলে মনে করেন প্রতিমন্ত্রী তারানা। পুরুষ যখন একটা কাজ করে,ধরেই নেওয়া হয় সে সেই কাজের যোগ্য,জন্মগতভাবেই সে সব যোগ্যতা নিয়ে জন্মেছেন। আর নারীকে তার নিজের যোগ্যতা প্রমাণ করতে হয় অন্য দশটি কাজ করে। এটা অন্যায়,এই দৃষ্টিভঙ্গী একটি সামাজিক অন্যায়।
সমাজের তৃণমূল থেকে উঁচু পর্যায় সবখানেই এই দৃষ্টিভঙ্গী রয়েছে দাবি করে তা পরিবর্তনের উপর জোর দেন তারানা। “বয়স,লিঙ্গ,পোশাক যোগ্যতার মাপকাঠি হতে পারে না,মাপকাঠি হবে তার সততা,দক্ষতা,কাজ করার স্পৃহা এবং তার মেধা।” মেয়েদের চাল-চলন ও পোশাক নিয়ে সমালোচনা বন্ধ করলে নারীর উপর ক্রমবর্ধমান সহিংসতা রোধ করা আনেকটাই সম্ভব বলে মনে করেন প্রতিমন্ত্রী। তিনি বলেন,আমাদের নিজেদের জিহ্বাকে সংবরণ করতে হবে। নিজের মেয়েটিকে কিছু বলি না;কিন্তু আমার পাশের বাড়ির ভাবির মেয়ে কী কাপড় পরল,কত রাতে বাড়ি ফিরল..“আজকে থেকেই নারীর অধিকার রক্ষায় আমরা ছোট্ট একটা কাজ যদি শুরু করে দিই,সেই কাজটি হলো সমালোচনা-আলোচনার ক্ষেত্রে নিজ নিজ জিহ্বা সংবরণ করা।” নারীর প্রতি সহিংসতা রোধে নারীদের ভূমিকার কথাও মনে করিয়ে দেন এই নারী প্রতিমন্ত্রী।
“আমরা নারীরা কি নারীবান্ধব?যদি তাই হয়,তাহলে একজন ধর্ষকের স্ত্রী কী করে স্বামীর পাশে দাঁড়িয়ে বলে,‘আমার স্বামীর কোনো দোষ নেই’একজন বউ কী করে শাশুড়িকে এবং একজন শাশুড়ি কী করে বউকে অত্যাচার করে।
“একটা খুনের ঘটনা ঘটলে আমরা কেন উৎসাহী হয়ে যাই যে এখানে কোনো পরকীয়া খুঁজে পাওয়া যায় কি না। এই মানসিকতা নোংরা।” ‘সময় এখন নারীর:উন্নয়নে তারা বদলে যাচ্ছে গ্রাম-শহরে কর্মজীবন ধারা’শীর্ষক এই আলোচনা অনুষ্ঠানে পিকেএসএফের সভাপতি কাজী খলীকুজ্জমান আহমদ, কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেন,সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো.জিল্লার রহমান,বাংলাদেশ উন্নয়ন পরিষদের নির্বাহী পরিচালক নিলুফার বানু উপস্থিত ছিলেন।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© All rights reserved © 2017 DakshinSunamganj24.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com