বুধবার, ২৯ Jun ২০২২, ০৪:৩৬ পূর্বাহ্ন

pic
নোটিশ :
পরীক্ষামূলক সম্প্রচার চলছে!! জেলা উপজেলায় প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে বিস্তারিত জানতে : ০১৭১২-৬৪৫৭০৫
তাহিরপুরে ফসলরক্ষা বাঁধের পিআইসি সভাপতি ৭বছরের শিশুর হাতের ৩টি আঙ্গুল কেটে দিলেন

তাহিরপুরে ফসলরক্ষা বাঁধের পিআইসি সভাপতি ৭বছরের শিশুর হাতের ৩টি আঙ্গুল কেটে দিলেন

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি::সুনামগঞ্জের তাহিরপুরের হাওর রক্ষা বেড়ি বাঁধে গড়াগড়ি দেয়ার কারণে পিআইসির সভাপতি ও যুবলীগের সাবেক আহবায়ক ৭ বছরের এক শিশুকে মাটিতে আছড়ে ফেলে ধান কাঁটার কাঁচি দিয়ে হাতের ৩টি আঙ্গুল কেঁটে দিলেন। শনিবার বিকেলে উপজেলার শ্রীপুর দক্ষিন ইউনিয়নের মহালিয়া হাওরের ময়নাখালী বেড়িবাঁধ এলাকায় এমন বর্বর কান্ড ঘটিয়েছেন যুবলীগ নেতা। এ নিয়ে প্রশাসন ও জনমনে তোলপাড় শুরু হয়েছে। জানা যায়,ফসল রক্ষা বাঁধের উপর ওঠার অভিযোগে শিশুর ডান হাতের ৩ টি আঙ্গুল কাঁচি দিয়ে কেটে দিয়েছে প্রকল্পের পিআইসি। আহত শিশুটিকে তাহিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়ার পর তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য সুনামগঞ্জ জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরন করেছে কর্তব্যরত চিকিৎসক। আহত শিশু তাহিরপুর উপজেলার শ্রীপুর দক্ষিন ইউনিয়নের সুলেমানপুর গ্রামের শাহানুর মিয়ার পুত্র ইয়াহিন(৭)। তাহিরপুরের দক্ষিণ শ্রীপুর ইউনিয়নের মহালিয়া হাওরের ময়নাখালি বেড়িবাঁধ এলাকায় শনিবার বিকেলে সুলেমানপুর গ্রামের শাহনুর মিয়ার স্থানীয় মাদ্রাসায় প্রথম শ্রেণীতে পড়–য়া ৭ বছর বয়সী ছেলে ইয়াহিন সহপাঠিদের সাথে নিয়ে মহালিয়া হাওরের ময়নাখালি নির্মাণনাদীন বেড়ি বাঁধের ওপর গড়াগড়ি দেয়ার কারণে ক্ষুদ্ধ হয়ে সুলেমানপুর গ্রামের জমির উদ্দিনের ছেলে ২৮নং পিআইসির সভাপতি ও ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক আহবায়ক আবদুল অদুদ শিশু ইয়াহিনকে দৌড়াইয়া ধরে এনে বাঁেধর মাটির ওপর একাধিকবার আছড়ে ফেলেন।’এক পর্যায়ে শিশু ইয়াহিন বাঁচার আকুঁতি জানিয়ে অদুদের হাতে পায়ে ধরে প্রান ভিক্ষা চাওয়ার পরও টলেনি তার মন। অদুদ ধান কাঁটার কাঁচি দিয়ে ওই শিশুর ডান হাতের ৩টি আঙ্গুল কেঁটে দিলেন।’পরে স্থানীয়রা ও পরিবারের লোকজন রক্তাক্ত অবস্থায় শিশুটিকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে সেখানে অবস্থার উন্নতি না হওয়ায় রাতে তাকে জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।’এ ব্যাপাের তাহিরপুর মহালিয়া হাওরের ২৮নং পিআইসির সভাপতি ও ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক আহবায়ক আবদুল সভাপতি ও যুবলীগের সাবেক আহবায়ক আবদুল অদুদের নিকট এ বিষয়ে জানতে চাইলে শনিবার রাতে শিশুর আঙ্গুল কেঁটে ফেলার অভিযোগ প্রথমে অস্বীকার করলেও পরবর্তীতে বললেন শিশুরা বাঁধে গিয়ে দুষ্টামি করছিলো,বাঁধের মাটি সড়ে যাবে তাই শিশুদের কিছুটা শাসন করেছি। শিশু ইয়াহিনের আঙ্গুল কেঁটে নেয়ার প্রসঙ্গে জানতে চাইলে ফের অদুদ বলেন, ধান কাঁটার কাঁচি দিয়ে হয়ত সে নিজেই আঙ্গুল কেঁটে ফেলেছে।’ধান কাঁটার কাঁচি ওই শিশুর হাতে কীভাবে এল এমন প্রশ্নের কোন সদুওর তিনি না দিয়ে বললেন ভাই আমার মাথা ঠিক ছিলানা রাগের মাথায় ঘটনাটা আমি ঘটিয়ে ফেলেছি। শিশুটির পিতা শাহানুর মিয়া ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান,গতকাল শনিবার বিকেলে ইয়াহিন গরুর ঘাস কাটার জন্য মহালিয়া হাওর পাড়ে ময়নাখালি বাঁধের উপর দিয়ে হেটে যাওয়ার সময় শিশুটির পা পিছলে পড়ে বাঁধের নীচে পড়ে যায়। এ সময় নির্মানাধীন বাঁধের ড্রেসিং করা কাজের সামান্য ক্ষতি হয়। বিষয়টি এসময় ময়নাখালি বাঁধের ২৮ নং পিআইসি অদুদ মিয়া দেখতে পেলে ইয়াহিনের হাতে থাকা কাচিটি কেরে নিয়ে তাহার হাতের ৩টি আঙ্গুল কেটে দেয়। এ সময় রক্তাক্ত অবস্থায় শিশুটি তাহার পরিবারের লোকজনকে জানালে সন্ধ্যায় ইয়াহিনকে চিকিৎসার জন্য তাহিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে। আহত শিশু ইয়াহিন বর্তমানে সুনামগঞ্জ জেলা সদর হাসপাতালে ডাক্তরের চিকিৎসাধীন রয়েছে। শিশু ইয়াহিনের দরিদ্র কৃষক পিতা শাহনুর মিয়া আরও বলেন,আমি গরীব মানুষ হাওরের বেড়িবাঁধে গিয়ে গড়াগড়ি দেয়ার অপরাধে আমার শিশু সন্তানের হাতের তিনটি আঙ্গুল কেঁটে দিল যুবলীগ নেতা অদুদ এখন কী করে আমার ছেলে কাঁটা আঙ্গুল দিয়ে স্কুলে গিয়ে লেখা পড়া করবে? তাহিরপুর থানার ওসি শ্রী নন্দন কানি ধর শনিবার রাত পৌনে ১০টায় বললেন,এমন বর্বর ঘটনার খবর পেয়ে রাতেই ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছি।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© All rights reserved © 2017 DakshinSunamganj24.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com